আজ ৮ই কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৪শে অক্টোবর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

দুই সপ্তাহ সময় পেলেন রবি’র অভিযুক্ত সেই শিক্ষিকা

নিজস্ব প্রতিবেদক :
সিরাজগঞ্জের রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৪ শিক্ষার্থীর মাথার চুল কেটে দেয়ার ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনকে দুই দফায় তদন্ত কমিটি ডাকার পরেও না এসে সময় প্রার্থনা করেন। প্রথমে তাকে আর সময় দেওয়ার সিধ্যান্ত না থাকলেও তিনি বার বার ই-মেইলে সময়ের আবেদন করায় তার এই আবেদনের প্রেক্ষিতে তদন্ত কমিটি তাকে দুই সপ্তাহ সময় দিয়ে আগামী ২১ অক্টোবর দুপুর ১টায় উপস্থিত হয়ে তার বক্তব্য উপস্থাপনের জন্য নতুন সময় বেধে দিয়েছেন। বিষয়টি বুধবার নিশ্চিত করেছেন রবীন্দ্র অধ্যায়ন বিভাগের চেয়ারম্যান ও ৫সদস্যের তদন্ত কমিটির প্রধান লায়লা ফেরদৌস হিমেল।

এর আগে গত ৩ অক্টোবর ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীসহ প্রায় অর্ধশত শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও কর্মচারীদের সাক্ষ্য গ্রহণ করেছেন ৫ সদস্যের গঠিত তদন্ত কমিটি। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনের সেমিনার কক্ষে গত রবিবার (৩ অক্টোবর) সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত এই সাক্ষ্যগ্রহণ কার্যক্রম চলে। কিন্তু সেদিন দুপুর ১২টায় অভিযুক্ত শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিন বাতেন উপস্থিত না হয়ে ১৪ দিনের সময় প্রার্থনা করেন। এর প্রেক্ষিতে তাকে ৩ দিনের সময় দেন তদন্ত কমিটি। যা গত বৃহস্পতিবার (৭ অক্টোবর) দুপুর দুইটায় হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু সেদিন বিকাল ৫টা পর্যন্ত তার জন্য তদন্ত কমিটি অপেক্ষা করলেও তিনি না এসে ই-মেইলের মাধ্যমে নিজের শারীরিক ও মানসিক অসুস্থতার কথা উল্লেখ করে আরও ২ সপ্তাহের জন্য সময় আবেদন করেন।

তার প্রেক্ষিতেই তাকে এই সময় দেয়া হলো। রবীন্দ্র অধ্যায়ন বিভাগের চেয়ারম্যান ও ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটির প্রধান লায়লা ফেরদৌস হিমেল বলেন, অভিযুক্ত সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য ও বাংলাদেশ অধ্যয়ন বিভাগের শিক্ষিকা ফারহানা ইয়াসমিন বাতেনকে দুই দফায় গত ৩ ও ৭ অক্টোবর দুপুর ১২টায় তদন্ত কমিটির নিকট এসে তার বক্তব্য উপস্থাপন করার সময় দেয়া হলেও তিনি মানসিক ও শারীরিক অসুস্থতার কথা জানিয়ে উপস্থিত না হয়ে মেইলে আরও ১৪ দিনের সময় দরকার বলে জানিয়েছিলেন। তিনি এই মেইলটিই বার বার পাঠিয়ে সময়ের জন্য আবেদন জানাচ্ছেন। এর প্রেক্ষিতে তদন্ত কমিটি তাকে তার চাওয়া অনুযায়ী দুই সপ্তাহের সময় দিয়েছেন।

৭ অক্টোবর থেকে হিসেব করে দুই সপ্তাহ পরে আগামী ২১অক্টোবর দুপুর ১টায় আসার জন্য নতুন সময় বেধে দেয়া হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার ব্যাপারে বলেন, নানান বিষয়ে যাচাই-বাছাই করে এই ঘটনার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে। তবে ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা ঘটনার বিবরণ দিতে গিয়ে অনেকেই কেদে ফেলেন বলেও জানান তিনি। কবে নাগাদ তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হতে পারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, যেহেতু অভিযুক্ত শিক্ষক উপস্থিত না হয়ে সময়ের জন্য আবেদন করেছেন এবং নতুন করে সময় দেয়া হয়েছে সেক্ষেত্রে উনার বক্তব্য শুনে তারপরই সবকিছু মিলিয়ে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয়া হবে। তবে কোনও কারনে উনি যদি শেষ পর্যন্ত উপস্থিত নাই হন সেক্ষেত্রে কি করা হবে জানতে চাইলে বলেন, সেটা অবস্থা অনুযায়ী তদন্ত কমিটি পরবর্তী সিধ্যান্ত নিবেন।

0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তী

error: Content is protected !!