আজ ১০ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বেলকুচি মডেল ডিগ্রি কলেজে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলছে শিক্ষার্থীদের পাঠদান

মান্নান শেখ :

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষকদের উপস্থিতি থাকলেও শিক্ষার্থীদের পদচারণা ছিল না দেড় বছর। দীর্ঘদেড় বছর পরে শিক্ষার্থীদের মিষ্টি কণ্ঠে শোনা যায়নি জাতীয় সংগীত। চক-ডাস্টার-ঘণ্টার পাশাপাশি ধুলোর আস্তরণ পড়েছিল শ্রেণিকক্ষে। সব কিছু মাড়িয়ে দীর্ঘ দিন পর বেজেছে উঠলো বেলকুচি মডেল ডিগ্রি কলেজের ঘণ্টা। ঘণ্টা বাজিয়ে রোববার সকাল থেকে সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠদান শুরু হয়েছে।

বেলকুচি পৌর এলাকার বেলকুচি মডেল ডিগ্রি কলেজের প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী ফাতেমা আক্তার ফাহমিদা কথা বলে জানায়, দীর্ঘদিন পর কলেজ খুলে দেওয়ায় আমরা মহাখুশি।

দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী সারমিন আক্তার বলে, করোনা মহামারিতে বাড়িতে এক প্রকার বন্দি অবস্থায় ছিলাম। ঘরে বন্দি থাকতে গিয়ে মানসিক রোগী হয়ে গিয়েছিলাম। মা-বাবা ঘরের বাইরে বের হতে দিতো না। মোবাইলে অনলাইন ক্লাস, ইন্টারনেট আর টিভিতে মন ভরছিল না।
শিক্ষকদের কাছ থেকে সরাসরি শিক্ষা গ্রহণের মজা টি আলাদা। করোনার কারণে আমরা শিক্ষকদের কাছ থেকে সরাসরি শিক্ষা গ্রহন থেকে বঞ্চিত ছিলাম। আমাদের কলেজের অধ্যক্ষ স্যার আমাদের সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার নিদেশ দিয়েছে।

বেলকুচি মডেল ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল মান্নান সরকার বলেন, শিক্ষা অধিদফতরের নির্দেশনা অনুযায়ী ক্লাস নেওয়ার সব প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন করে ক্লাস শুরু করা হয়েছে। এ ছাড়া করোনায় শিক্ষা কার্যক্রম যাতে বিঘ্ন না ঘটে, স্বাস্থ্যবিধি প্রতিপালনে গুরুত্ব সহকারে দেখা হচ্ছে। শিক্ষার্থীদের ক্যাম্পাসে প্রবেশের পূর্বে থার্মাল স্ক্যানার দিয়ে শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

বেলকুচি উপজেলা জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এস এম গোলাম রেজা জানান, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা সংক্রান্ত যাবতীয় নির্দেশনা সম্বলিত পরিপত্র সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নির্দেশনা যথাযথভাবে বাস্তবায়নের লক্ষ্যে উপজেলাভিত্তিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের প্রধানদের নিয়ে মতবিনিময় করা হয়েছে। এ সপ্তাহে শুক্র ও শনিবার প্রতিষ্ঠান খোলা রেখে শনিবারের মধ্যে সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করা এবং নো মাস্ক, নো সার্ভিস মেনে শিক্ষার্থীদের তিন ফুট দূরত্বে বসাতে বলা হয়েছে।

পাশাপাশি শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা, স্বাস্থ্য সুরক্ষার সকল বিধান মেনে চলতে হবে। তাপমাত্রা মাপার যন্ত্র, আইসোলেশন কক্ষ স্থাপন, পর্যাপ্ত পানির কল, বেসিন স্থাপনসহ বিশেষ ক্লাস রুটিন, ডিজির নির্দেশনা বাস্তবায়ন নিয়ে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের সঙ্গে আলোচনা করা হয়েছে এবং তা বাস্তবায়নে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। সশরীরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সমূহে গিয়ে প্রস্তুতি পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে।

0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তী

error: Content is protected !!