আজ ১৭ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১লা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বেলকুচিতে যুবকের রহস্যজনক আত্মহত্যা

বেলকুচি প্রতিনিধি:

সিরাজগঞ্জের বেলকুচির রাজাপুর ইউনিয়নের হরিনাথপুর বটতলা গ্রামের আলী মোল্লার বড় ছেলে হারুন মোল্লা (৩৪) মা-বোনের নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে গলায় দড়ি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে।
শনিবার সকালে হারুন মোল্লা তার নিজ শয়ন কক্ষে মা-বোনের নির্যাতনের দড়ি গলায় পেঁচিয়ে ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করে।
এলাকাবাসী জানান, হারুনের মা বোন অনেক খারাপ যা ভাষায় প্রকাশ করার মত নয়। যা কোন ভাবেই হারুন তা সহ্য করতে পারতো না। হারুনের ইনকামেই চলতো তাদের সংসার। হারুন বোবা মানুষ হওয়ায় প্রায় সময় মা বোন বেশী নির্যাতন করত আমরা কিছু বলতে পারতাম না কারন তারাই মা ভাই বোন। শুক্রবারেও হারুন বাজার থেকে তেল কম আনায় বাড়িতে ঝামেলা বাঁধে তখন হারুনকে রশি দিয়ে বেঁধে উঠানের মধ্যে ফেলে নির্যাতন করে মা বোন। তার জন্যই হয়তো আজ গলায় ফাঁসি নিয়ে মারা যায় হারুন। ছেলে হিসেবে গ্রামের মধ্যে অনেক ভালো ছিল। হারুনের স্ত্রী বলেন আমার শাশুড়ি ননদ প্রায় সময় আমার স্বামীকে মারধর করত। আজ এমন ঘটনা ঘটবে কে যানে। করোনার মধ্যে ইনকাম কম হওয়ায় শুক্রবার আমার স্বামী বাজার থেকে তেল একটু কম আনায় মা বোন তাকে উঠানের মধ্যে রশি বেঁধে মারধর করে তার পরেই আমার স্বামী বিভিন্ন ভাবে ফাঁসি নেয়া চেষ্টা করত শনিবার সকালে আমি বাইরে গেলে শয়ন কক্ষে গলায় ফাঁসি দিয়ে ঝুলে থাকে। আমার স্বামীকে যারা মেরেছে আমি তার ফাঁসি চাই বিচার চাই। এ বিষয়ে বেলকুচি থানার ওসি (তদন্ত) নূরে আলম জানান, রাজাপুর ইউনিয়নে হরিনাথপুর গ্রামে হারুন নামের একজন তার শয়ন কক্ষে দড়ি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। ঘটনা শোনার পরে আমরা লাশ উদ্ধার করে সিরাজগঞ্জ শেখ বঙ্গমাতা ফজিতুলান্নেছা হাসপাতালে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছি। এ ব্যাপারে থানায় ইউডি মামলা হয়েছে।

0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তী

error: Content is protected !!