আজ ১৭ই শ্রাবণ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ, ১লা আগস্ট, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

বেলকুচিতে পয়েন্টে যমুনার পানি বৃদ্ধিতে দূর্ভোগে পড়েছে নদীতীরবর্তী এলাকার মানুষ

বেলকুচি প্রতিনিধি :

গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে দেয়ে আসা পাহাড়ি ঢলে যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় যমুনা নদীর পানি ৪৬ সেন্টিমিটার বৃদ্ধি পেয়ে বিপদসীমার ১ দশমিক ৪১ মিটার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

তবে পানি বিপদসীমার নিচ দিয়ে প্রবাহিত হলেও যমুনায় পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকায় বেলকুচি উপজেলার চরাঞ্চল ও নদীতীরবর্তী নিম্ন এলাকাগুলো প্লাবিত হতে শুরু করেছে।

অপরদিকে উপজেলার বেলকুচি সদর ইউনিয়নের বয়ড়া মাসুম, বড়পাখিয়া, ছোট বেড়াখারুয়া সহ বিভিন্ন এলাকার যমুনা নদী থেকে অবৈধভাবে ড্রেজার লাগিয়ে বালু উত্তোলন করার কারণে পানি বাড়ার সাথে সাথে শতশত বিঘা আবাদি জমি ও বসতভিটা নদী গর্ভে বিলিন হতে শুরু করেছে। সেই সাথে পানিতে তলিয়ে যাচ্ছে রাস্তা-ঘাট ও হাট-বাজার।

এদিকে সিরাজগঞ্জ পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, টানা বৃষ্টিপাত ও উজান থেকে আসা পাহাড়ি ঢলে গত কয়েক দিন ধরেই যমুনা নদীর পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় ৪৬ সেন্টিমিটার পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। তিনি আরো বলেন, আগামী কয়েকদিন যদি পানি এভাবেই বৃদ্ধি পেতে থাকে তাহলে বিপদসীমা অতিক্রম করতে পারে।

বেলকুচি সদর ইউনিয়নের ইউপি চেয়ারম্যান মির্জা সোলাইমান হোসেন জানান, আমার ইউনিয়নটি সম্পূর্ণ ভাবে পানিতে ডুবে যায়। পানি বাড়া শুরুর সাথে সাথে এলাকার মানুষের দূর্বোগ বাড়তে শুরু করে। তাদের নৌকা ছাড়া যাতায়াতের অন্য কোন বাহন থাকে না। আবাদি জমি পানিতে ডুবে গেলে খাবার সংকট দেখা দেয়। সবচেয়ে বেশী সমস্যায় পড়তে হয় গবাদিপশু নিয়ে।

বেলকুচি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আনিসুর রহমান বলেন, যমুনা নদীর পানি সাম্প্রতিক সময়ে বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে পানি বৃদ্ধি পাওয়ার আগেই আমরা উপজেলা যে সকল অঞ্চল পানিতে ডুবে যায় ঐ সকল এলাকার জনপ্রতিনিধিদের নিয়ে বর্ন্যার আগাম প্রস্তুতি হিসাবে সভা করেছি। সেই সাথে বন্যা দূর্গতদের জন্য ত্রাণ সহায়তা ব্যবস্থা সহ বেশ কয়েকটি নিরাপদ স্থান (ফ্ল্যাট সেন্টার) প্রস্তুত রেখেছি।

-আজকের সিরাজগঞ্জ // রিফাত

0Shares

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর...

নিয়োগ বিজ্ঞপ্তী

error: Content is protected !!